আপনাকে যদি বলা হয় বাংলাদেশের সবচেয়ে ছোট জেলা কোনটি ? তাহলে উত্তর দেবেন সবচেয়ে ছোট জেলা হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ। আজ আপনাদের সাথে আলোচনা করব নারায়ণগঞ্জ জেলা সম্পর্কে, নারায়ণগঞ্জের পূর্ববর্তী ইতিহাস থেকে বর্তমান পর্যন্ত!

নারায়ণগঞ্জ

এটি ঢাকা বিভাগের একটি জেলা যা ঢাকা বিভাগের মধ্যাঞ্চলের আওতাভুক্ত। এই শহরটি অত্যন্ত প্রাচীন শহর এবং সোনারগাঁও এ জেলার আওতাভুক্ত। নারায়ণগঞ্জ জেলার আয়তন হচ্ছে 683 দশমিক 14 বর্গ কিলোমিটার। যা অন্যান্য জেলার তুলনায় আয়তনের দিক দিয়ে। এ জায়গাটি ঢাকার সীমানার সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে। জাভা কার সাথে একদম পারস্পরিক ভাবে জড়িত।

নামকরণের ইতিহাস

হিন্দু ধর্মীয় নেতা যার নাম বিকন লাল পান্ডে নারায়ণ ঠাকুর নামে বেশি পরিচিত ছিল। নারায়ান থাকুর ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির কিছু মালিকানা কিছু অংশ কিনে নিয়েছিলেন। তিনি তার প্রভু নারায়ণ ঠাকুর নাম এর সেবায় নদীর তীরে মার্কেটকে দেবোত্তর সম্পদ হিসেবে দান এবং ঘোষণা দেন। এর ধারা অনুযায়ী পরবর্তীকালে এ জায়গার নাম দেওয়া হয় নারায়ণগঞ্জ।

নারায়ণগঞ্জ এর ভৌগলিক দিক

এ জেলার পূর্ব দিকে রয়েছে এ জেলার পূর্ব দিকে রয়েছে কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া। পশ্চিমে রয়েছে ঢাকা এবং উত্তরে রয়েছে নরসিংদি গাজীপুরের কিছু অংশ ।
আর দক্ষিণ অংশ মুন্সিগঞ্জ দাঁড়া আবর্তিত ।

প্রশাসনিক

১৯৮৪ সালে নারায়ণগঞ্জকে জেলা হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এটি ছিল ফেব্রুয়ারি মাসের ১৫ তারিখ। এটি মাত্র ৫ টি উপজেলা নিয়ে জেলা গঠিত হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জকে মহাকুমা হিসেবে ধরা হয় ১৯৮২ সাল থেকে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন গঠন করা হয় ২০১১ সালের মে মাস থেকে।

এ জেলায় রয়েছে সাতটি থানা

থানা গুলো হচ্ছে:
১. নারায়ণগঞ্জ সদর
২. সিদ্ধিরগঞ্জ থানা
৩. বন্দর থানা
৪. ফতুল্লা থানা
৫. রূপগঞ্জ থানা
৬.আড়াইহাজার থানা
৭. সোনারগাঁও থানা

আরো উপজেলাগুলো হচ্ছে

১. নারায়ণগঞ্জ
২. আড়াইহাজার উপজেলা
৩.সোনারগাঁও উপজেলা
৪. বন্দর উপজেলা
৫. রূপগঞ্জ উপজেলা

জায়গাটিতে ৬৩ টি ওয়ার্ড এবং ১৩৩ টি গ্রাম রয়েছে। মোট পৌরসভার সংখ্যা একটি সিদ্ধিরগঞ্জ পৌরসভা।

জনসংখ্যা

৩০ লক্ষ ৭৪০৭৭ জন নিয়ে এ জেলা গঠিত। এটি ২০১৫ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী হিসাব। প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৪৩০৮ জন বসবাস করেন।এ জেলায় মোট সাক্ষরতার হার ৫৭.১০ শতাংশ। প্রতিটি পরিবারের আকার ৪.৩%।

শিক্ষা ব্যবস্থা

নারায়ণগঞ্জ শিক্ষার দিক দিয়ে অনেক এগিয়ে। ছোট হলেও অনেক স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় ও মাদ্রাসা রয়েছে।এখানে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। তাছাড়া সরকারি-বেসরকারি মিলে সর্বমোট ২০ টি কলেজ প্রতিষ্ঠান রয়েছে ।স্কুল এন্ড কলেজ হয়েছে মোট ২০ টি এবং ভোকেশনাল দুটি উচ্চ মাধ্যমিক প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া রয়েছে ১২৭ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় , ৪৫৮ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় , ৭৬ টি কিন্ডারগার্ডেন এবং ৫৬ টি মাদ্রাসা। তাছাড়া মেরিন ও শিপ-বিল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং প্রতিষ্ঠানটি নারায়ণগঞ্জে অবস্থিত। যা বাংলাদেশের একটি মাত্র রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ মহিলা কলেজ এ জেলার গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এছাড়া রয়েছে তোলারাম কলেজ বিখ্যাত।

কিছু গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নাম

১. মোহাম্মদ হাসান যিনি ছিলেন ভাষাসৈনিক
২. ঈশা খাঁ
৩. মোস্তফা সারোয়ার
৪. আলি আহমেদ চুনকা যিনি ছিলেন প্রথম পৌর পিতা।
৫. এ কে এম শামীম ওসমান যিনি বর্তমান এমপি
৬. পারভীন সুলতানা দিতি তিনি একজন অভিনেত্রী ছিলেন।
৭. শাকিব খান যিনি বর্তমান বাংলাদেশের জনপ্রিয় নায়ক।
৮. আশরাফ আহমেদ চুন্নু চিনি জাতীয় ফুটবলার হিসেবে পরিচিত

নারায়ণগঞ্জ হতে ১৬ টি দৈনিক পত্রিকা সাপ্তাহিক পত্রিকা প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়াও অসংখ্য অনলাইন নিউজ পোর্টাল সাইট রয়েছে এ জেলায়।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জে রয়েছে অনেক দর্শনীয় স্থান। শেষ হবে স্থান থেকে আপনি ঘুরে আসতে পারবেন। সোনারগা হোটেল বাংলাদেশের বিখ্যাত। এছাড়াও রয়েছে আরও পুরাতন অনেক ইতিহাস।

আমাদের অন্যান্য পোস্ট ফলো করুন। আমাদের নতুন নতুন আপডেট পেতে আমাদের সঙ্গে থাকুন। পরবর্তীতে আমরা আরো নতুন কোন প্রযুক্তি বা প্রশ্নোত্তর নিয়ে আপনাদের সামনে আসব। আমাদের পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে